আশুলিয়ায় স্কুল শিক্ষার্থীকে গণধর্ষণ

বিপ্লব,সাভার: আশুলিয়ায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুল শিক্ষার্থীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের এনায়েতপুর এলাকায় এই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা একই এলাকার সেন্টু মিয়া (৩০) ও আরাফাতকে (২৮) অভিযুক্ত করে আশুলিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকালে সেন্টু মিয়ার স্ত্রী অসুস্থ বলে ভিক্টিম স্কুলছাত্রীকে কৌশলে বাসায় ডেকে নেয় সে। এসময় ঐ স্কুল ছাত্রী তার বাসায় গিয়ে অভিযুক্তের স্ত্রীকে না পেয়ে ফিরে আসতে চেষ্টা করলে তার পথরোধ করে সেন্টু। এসময় জোরপূর্বক ভয়ভীতি প্রদর্শন করে মেয়েটিকে ঘরে নিয়ে যায় সে এবং তার এ কাজে সহায়তা করে বাড়ির মালিকের ছেলে আরাফাত নামে আরেক অভিযুক্ত। পরে ঐ স্কুল শিক্ষার্থীকে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে তারা। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর আর্তচিৎকার শোনে এলাকাবাসী আমির হোসেনের বাড়ি থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। এসময় মানুষের উপস্থিতি টের পেয়ে দুই অভিযুক্ত পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী মা বলেন, আমরা অসহায় দরিদ্র মানুষ। স্বামী চলে যাওয়ার পর থেকে আমি রাজমিস্ত্রীর যোগালি হিসেবে কাজ করে সংসার পরিচালনাসহ ছেলে মেয়েদের মানুষ করে যাচ্ছি। আজ আমার মেয়েকে গণধর্ষণ করার পরেও আমি কোন বিচার পাচ্ছিনা। এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের দিয়ে আমাকে আমার পরিবারসহ এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য বারবার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আমি গরীব বলে কি ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হব! বলেও প্রশ্ন রাখেন ঐ ভূক্তভোগীর মা।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক(এস আই)জোহাব আলী জানান,বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।