কালিয়াকৈরে  বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা, যুবলীগ নেত্রী আটক

কালিয়াকৈর(গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করে আব্দুল মুন্নাব (৬০) নামে এক বৃদ্ধকে এলোপাতাড়ি ভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার সকালে উপজেলার মাঝুখান গ্রামে এঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় আফরোজা আক্তার ঝুমুর নামে উপজেলা যুব মহিলালীগের এক নেত্রীকে আটক করেছে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকালে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে উপজেলার মৌচাক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক সেলিম হোসেন ও তার স্ত্রী কালিয়াকৈর উপজেলা মহিলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আফরোজা

আক্তার ঝুমুর (তাদের ব্যক্তিগত বিদ্যালয়) মর্নিং সান কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে ওই একই এলাকার হযরত আলীর ছেলে আব্দুল মুন্নাবকে (৬০) এলোপাতাড়ি ভাবে পিটিয়ে আহত করে ফেলে রেখে যায় ।

 এসময় মুন্নাবের একটি টিনের বাউন্ডারিও ভাঙ্চুর করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এক পর্যায়ে স্থানীয় লোকজন তাকে ঘটনাস্থল থেকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভতি করে। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার সকালে তিনি মারা যান।

 ওই বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে উপজেলা যুব মহিলালীগের যুগ্ন আহবায়ক ঝুমুর (৩৮)কে আটক

করেছে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ। তার লাশ ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহম্মদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

পরে স্থানীয় লোকজন সেলিম ও ঝুমুরের ফাঁসির দাবিতে মিছিল করেন। নিহত বৃদ্ধের পুত্র জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোদের জের ধরে মর্নিং সান কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে আমার বৃদ্ধ বাবাকে যারা পিটিয়ে হত্যা করেছে আমি তাদের ফাঁসি চাই।এঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আকবর আলী খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় ঝুমুর আফরোজা আক্তার ঝুমুর নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।