জাবিতে শিশু হত্যার প্রতিবাদে ও খুনিদের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ।

জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানার ধুরাইল গ্রামে শিশু হত্যার প্রতিবাদে ও খুনিদের বিচারের দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। মানববন্ধনে প্রায় ২৫০ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন,এসময় শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন স্লোগান দিতে দেখা যায়।

আজ সোমবার (২৫ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে
সকাল ১০ টায় শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করে।

গত ১৫ মার্চ (শুক্রবার) জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার ধুরাইল গ্রামের আব্দুর রহমান (১০) নামের এক শিশুকে নিশংসভাবে হত্যা করে পার্শ্ববর্তী গ্রামের একটি পরিতাক্ত স্কুলের একটি কক্ষে ফেলে রেখে যায় খুনিরা। শিশুটির দেহের গলা কাঁটা, মাথা থেঁতলানো, বুকেপিঠে ছুরির আঘাত।খুনিরা শিশুটির দেহকে শির:বিচ্ছিন্ন করে।

শিশুটি (আব্দুর রহমান) ধুরাইল গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা রেজাউল ইসলামের ছোট ছেলে। এই ঘটনায় রেজাউল ইসলাম ও দিন (১৫ মার্চ)বাদী হয়ে পাঁচবিবি থানায় নাম না জানায় অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেন।এই মামলার দায়িত্ব নেন পাঁচবিবির থানার ওসি বজলুর রহমান। তিনি খুনিদের আটক করার জন্য তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্তের দায়িত্ব দেন পাঁচবিবির থানার এসআই ফারূককে। কিন্তু এক সপ্তাহের অধিক অতিক্রম হলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

শিশুটি (আব্দুর রহমান) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মমিনুল ইসলামের (আইআইটি–৪১) ছোটভাই।
মানববন্ধনে মমিনুল ইসলাম বলেন,“কোন কারন ছাড়াই আমার ছোট ভাইকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে, আমার পরিবারের সাথে কারওর কোন দ্বন্দ্ব নেই,যে এলাকায় আমার ছোট ভাইকে হত্যা করেছে সেখানে অনেক অনৈতিক কাজ হয়,নিশ্চয় আমার ছোট ভাই খুনিদের কোন অপরাধ দেখে ফেলার কারণে আমার ছোট ভাইকে হত্যা করা হয়েছে, আমি সরকার ও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আমার ছোট ভাই (আব্দুর রহমান) হত্যার বিচার চাই”।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ফজলুর রহমান,তিনি বলেন,“আজকের শিশু আগামীর ভবিষ্যত,যে শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে সে হয়ত জাতির কর্ণধার হতে পারতো, শিশু হত্যা জঘন্য অপরাধ, খুনিদের আটক করে বিচার আওতাধীন আনার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ ”।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখার সভাপতি সুস্মিতা মরিয়ম, তিনি বলেন,“আমরা এমন একটি সমাজে বাস করি যেখানে নারী ও শিশুদের কোন অধিকার নেই,এসব ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটছে,তাই আমি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি যে, প্রশাসন যেন খুনিদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় নিয়ে আসে”।