ঝালকাঠিতে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সৈয়দ মিলন গ্রেফতার ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

1216

সৈয়দ রুবে, ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধিঃঃ ঝালকাঠিতে যুবলীগ নেতাকে মারধর, চাঁদা দাবীর মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সৈয়দ মিলনসহ ৬ জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।আটককৃতরা হলো জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও যুবলীগ নেতা সৈয়দ হাদিসুর রহমান মিলন (৩৬), সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম অপু(২৯), যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম (৪০), সুমন (৩৪), মামুন খান (৩৫) ও কামাল (৩৪)।

১৫/০১/২০২০ইং তারিখ বুধবার গভীর রাতে (মঙ্গলবার দিবাগত রাত) শহরের বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে এদেরকে আটক করা হয়।ঝালকাঠি পৌর এলাকার ১নং চাঁদকাঠি ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আবুল কালাম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৭জনের নাম উল্লেখ করে ।

মামলার এজাহারে জানা গেছে, ৫ লাখ টাকা ধার নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত তালবাহানা করে পরিশোধ করেনি সৈয়দ মিলন। পরে ধার নেয়া টাকা পরিশোধ না করে মাসে ৫০ হাজার টাকা কিস্তিতে চাঁদার টাকা পরিশোধের ঘোষণা দেয়। বিষয়টি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানালে তারা শালিস মিমাংসার কথা বলে।

গত ৫ জানুয়ারী এলজিইডির সামনে সৈয়দ মিলনের নেতৃত্বে ৭/৮ জনে হামলা ও মারধর করে গুরুতর আহত করে।

এসময় সাথে থাকা মোবাইল, টাকাসহ অর্ধলক্ষাধিক টাকার মালামাল ছিনিয়ে নিয়ে চাঁদার টাকা নেয়ার ঘোষণা দেয় হামলাকারীরা। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এঘটনায় কালাম বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ খলিলুর রহমান জানান, মামলার আসামী হিসেবে আটকের অভিযান চালিয়ে ডাক্তার পট্টির বাসা থেকে সৈয়দ মিলনকে আটক করা হয়।

এ সময় তার শয়ন কক্ষ থেকে ১২টি ধারালো দেশীয় রামদা, ৪টি জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়েছে। তার বাসা থেকে সাইফুল, মামুন, সুমন, কামালকে আটক করা হয়। এছাড়াও সৈয়দ মিলনের বিরুদ্ধে একাধিক চাঁদাবাজির মামলা ও অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। তার নামে অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলেও জানান ওসি।