ঠাকুরগাঁওয়ে সম্বিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ৮ দফা বাস্তবায়নের দবিতে সমাবেশ

হুমায়ুন কবির, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধিঃ মানবিক সমাজ নির্মাণে চাই সংস্কৃতির জাগরণ এ প্রতিপাদ্যে সংস্কৃতিক খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ৮ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ঠাকুরগাঁওয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও শহরের চৌরাস্তা এলাকায় শনিবার ১৮ জুন ঘন্টাব্যাপি এ কর্মসূচি পালন করে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ঠাকুরগাঁও জেলা শাখা।

সমাবেশে সংগঠনটির জেলা সভাপতি অনুপম মনির সভাপতিত্বে বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব প্রফেসর মনতোষ কুমার দে, সাংস্কৃতিক জোটের সাধারন সম্পাদক পার্থ সারথী দাস,
সদর উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সুবোধ রায়, গণসংগীত মঞ্চের সভাপতি বাউল মীর ছানোয়ার হোসেন ছানু, সাধারন সম্পাদক মুসা রাখাল, নিশ্চিন্তপুর থিয়েটারের সভাপতি রাশেদুল আলম লিটন, সাধারন সম্পাদক নূর আলম উজ্বল, শাপলা নাট্য গোষ্ঠির সাধারন সম্পাদক আলমগির হুসাইন, গ্রিন থিয়েটারের সাধারন সম্পাদক মামুনর রশিদ, সপ্তধ্বণী সংগীত বিদ্যালয়ের পরিচালক ধীরেন্দ্র রায়, প্রেসক্লাব সভাপতি মনসুর আলিসহ জেলার বিভিন্ন নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং সাংস্কৃতিক কর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, অতীতে বিভিন্ন সংকটময় মূহুর্তে বাংলাদেশের মাঠপর্যায়ের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাংস্কৃতিক শিল্পীরাই রাজপথে থেকে অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করে তাদের গান, কবিতা ও লেখনির মাধ্যমে। যখন ৭১এর পরাজিত শক্তি পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চালিয়ে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেলার হুমকি দেয়, দেশের মানুষ ও বাঙ্গালী সংস্কৃতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয় তখন এই ষড়যন্ত্র রুখতে সারাদেশের শিল্পীরা প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে উঠে। অথচ বাংলাদেশে বিভিন্ন খাতে অনেক বাজেট দেয়া হলেও সংস্কৃতি খাতে ১% এর কম বাজেট দেয়া হয় যা পৃথিবীর অন্য কোন দেশে হয়না। তাই এদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংস্কৃতিকে টিকিয়ে রাখতে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ৮ দফা বাস্তবায়ন খুবই জরুরী বলে তারা দাবি করেন।