ধামরাইয়ে মোটরসাইকেলের তেলের টেংকিতে পানি যাওয়ায় ভারসাম্যহীন ব্যাক্তিকে পিটিয়ে হত্যা।

মোঃ সম্রাট আলাউদ্দিন,ধামরাই (ঢাকা)ঢাকার ধামরাই উপজেলা সূতিপাড়া ইউনিয়নের নওগাঁও বাজারে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মানসিক ভারসাম্যহীন (শহীদুল ইসলাম ৫০) এক ব্যাক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে জানাগেছে।

এই ঘটনায় নিহতের ভাই স্বপন বাদী ৭জনকে আসামী করে ধামরাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করছেন।গতকার শনিবার(১২নভেম্বর) রাতে তাকে মানিকগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।এর আগে ধামরাই উপজেলার সূতিপাড়া ইউনিয়নের (৭নভেম্বর) দিনে নওগাঁর বাজারে তাকে পিটিয়ে হাত পা ভেঙে বাটারখোলা পরিত্যাক্ত একটি বটগাছের নিচে ফেলে রাখেন।

পরে খবর পেয়ে পরিবাবরের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতলে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

নিহত শহীদুলের বাড়ী মানিকগঞ্জ জেলার আটিগ্রাম ইউনিয়নের ভগবানপুর গ্রামের মৃত আজিজ মিয়ার ছেলে।অভিযুক্তরা হলেন, নওগাঁর বাজারের দোকান মালিক মোঃ মাসুদ ও তার ভাই মোঃ রাশো, চা দোকানদার মোঃ বাবুল, হাছেন আলী, বাজারের পাহারাদার রাহাত আলী(মাহু) তারা সবায় নওগাঁ গ্রামের বাসিন্দা। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,মানসিক ভারসাম্যহীন শহীদুল কয়েক বছর যাবত নওগাঁ বাজারে থাকেন। সেখানে বিভিন্ন দোকানদারদের টুকিটাকি কাজ করেন।

তাতে দোকানদাররা যা দিতেন তাই খেয়ে বাজারে থাকতেন। গত ৭ নভেম্বর নওগাঁ বাজারে একটি মোটরসাইকেল ধুয়ে দিতে বলে শহীদুলকে। সেই মোটরসাইকেল ধুয়ে দেওয়ার সময় তেলের টেংকির ভিতরে পানি গেলে রাশো, বাবুল, হাছেন, মাহু, মাসুদ মিলে মানসিক ভারসাম্যহীন শহীদুলকে পিটিয়ে মৃত ভেবে বাটারখোলা পরিত্যাক্ত একটি বট গাছের নিচে ফেলে চলে যায়। এই বিষয়ে এটিসি ইটভাটার শ্রমিক মোঃ জাহিদ বলেন, নওগাঁ বাজারের কিছু লোকজন পাগলটাকে মেরে বট গাছের নিচে ফেলে রেখে যায়। তার ডান হাত ও ডান পা ভাঙা সে নরাচরা করতে পারতো না।

আমরা কিছু কিছু খাবার পানি দিলে বাম হাত দিয়ে খেত।গতকাল সেই পাগলটা মারা গেছে শুনে মনে অনেক কষ্ট লাগছে।মানুষ এই ভাবে একজন পাগলকে পিটিতাই পারে।এই বিষয়ে শহীদুলের ভাই স্বপন বলেন, আমার ভাই মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় তাকে বাড়ীতে রাখতে পারতাম না। সে জোর করে নওগাঁ বাজারে চলে আসতো। আমরা মাঝে মধ্যে খবর নিতাম। কিন্তু গত ৭ নভেম্বর আমার ভারসাম্যহীন ভাইকে পিটিয়ে মৃত ভেবে পরিত্যাক্ত বট গাছের নিচে ফেলে দিয়েছিল। পরে ইটভাটার শ্রমিকরা আমাদের খবর দিলে আমরা এসে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। আমরা দুষিদের শাস্তি দাবি জানায়।

এই বিষয়ে ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আতিকুর রহমান বলেন, ধামরাই উপজেলার সূতিপাড়া ইউনিয়নের নওগাঁ বাজারের এক মানসিক ভারসাম্যহীন শহীদুল ইসলাম নামে এক ব্যাক্তিকে পিটিয়ে হত্যার একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত চলছে তদন্ত শেষে এর আইগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। লাশটি মানিকগঞ্জ হাসপাতালে ময়না তদন্ত করে পরিবারের কাছে লাশ দেওয়া হয়েছে।