বন্ধ করা অবৈধ হাসপাতালে কার্যক্রম ঠিকই চলছে

সিঙ্গাইর(মানিকগঞ্জ)প্রতিনিধি: মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে অবৈধ বেসরকারি হাসপাতাল,ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা প্রশাসন।

বন্ধ করা ৪ টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩ টিই প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়েই যাচ্ছেন। এতে হতবাক সচেতন মহল।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সিঙ্গাইর উপজেলায় বৈধ-অবৈধ মোট ২৫ টি হাসপাতাল,ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে। সারা দেশের মতো মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরেও অবৈধ বেসরকারি হাসপাতাল বন্ধে অভিযান চালান প্রশাসন। অভিযানে বৈধ কাগজ পত্র না থাকায় সিঙ্গাইরের নিউ মদিনা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার,শাহরাইলের ইব্রাহিম মেমোরিয়াল হাসপাতাল, মানিকনগরের মানিক নগর ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও আইডিয়াল ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কার্যক্রম বন্ধ করা হয়।

এছাড়া সিটি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করেন প্রশাসন। তবে প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে সিটি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার, আইডিয়াল ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার ছাড়া বাকি সব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম ঠিকই চলছে।

এবিষয়ে নিউ মদিনা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক আলমগীর হোসেন বলেন, লাইসেন্স পেতে সব ধরনের কাগজপত্র তৈরি করা হচ্ছে। সেই সাথে প্রতিষ্ঠান খোলা রেখে কয়েকজন রোগীকে শুধু ডাক্তার দেখানো হচ্ছে।

শাহরাইলের ইব্রাহিম মেমোরিয়াল হাসপাতালের ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয় নি। উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর আবুল কালাম একদিন এসে হাসপাতালের কাগজপত্রগুলো ঠিক করতে বলেছেন। তাই আমাদের হাসপাতালের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নুসরাত নওরিন আমিন বলেন, অবৈধ বেসরকারি হাসপাতাল,ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো বন্ধ করতে আমাদের অভিযান চলমান রয়েছে।

এছাড়া বন্ধ করে দেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো কাগজপত্র ঠিক না করে কার্যক্রম চালালে তাদের বিরুদ্ধে পূণরায় কঠিন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।