বেনাপোলে গনধর্ষনের শিকার দুই তরুনী; ধর্ষনের ১৮ ঘন্টা পর আটক- ৬ ধর্ষক

বেনাপোলে গনধর্ষনের শিকার দুই তরুনী; ধর্ষনের ১৮ ঘন্টা পর আটক- ৬ ধর্ষক

মোঃ রাসেল ইসলাম,বেনাপোল(যশোর)প্রতিনিধি: যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামে ৭ নরপশু কর্তৃক দুই তরুনীকে গনধর্ষন করে সর্বকালের সর্বযুগের ঘৃন্যতম কাজটি করার ১৮ ঘন্টার মধ্যে গেফতার হলো ৬ ধর্ষক ও উদ্ধার হয়েছে দুই তরুনী।

রবিবার রাত্রে রিয়া ও শাহনাজ নামে দুই তরুনীকে বেনাপোলের পুটখালী গ্রামের শাহ-আলমের বাড়ির পাশের একটি পুকুরপাড়ে রাতভর পালাক্রমে গনধর্ষন করেছে। রিয়ার বাড়ি কুষ্ঠিয়া জেলায় ও শাহনাজের বাড়ি চাদাপুর জেলায়।

আটককৃতরা হলোঃ- বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামের রাতুল, পিতা ছাদেক হোসেন, সোহেল পিতা আলম, আব্দুল্লাহ পিতা খালেক সেখ,আরিফ হোসেন পিতা আজাহার হোসেন, শিমুল পিতা মর্শেদ আলী, বিপ্লব পিতা আয়ুব আলী। শাহীন নামে অপর আসামি পলাতক রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায় ভারতে আতœীয় স্বজনের বাড়ি বেড়াতে যওয়ার উদ্দেশ্য তারা পুটখালী দালালদের মাধ্যমে আসে। এরপর তাদের রাত্রে শাহ-আলম বিশ্বাসের বাড়ি আটকে রেখে গভীর রাত্রে একটি পুকুরপাড়ে নিয়ে পালাক্রমে গনধর্ষন করে।

বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি আবু সালেহ মাসুদ করিম বলেন, অবৈধপথে ভারত যাওয়ার উদ্দেশ্য আসা দুই তরুনীকে পুটখালী গ্রামের ৭ জন ধর্ষক সারারাত পালাক্রমে ধর্ষন করেছে। আমি এ খবর জানতে পেরে সুকৌশলে গ্রাম বাসির সহযোগিতায় মীমাংসা করার কথা বলে ধর্ষকদের পুটখালী একটি বাড়িতে হাজির করিয়ে খুব দ্রæত ভাবে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। তাদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানায় ধর্ষনের ধারা অনুযায়ি মামলা হয়েছে। ধর্ষনের শিকার দুই যুবতীকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

আগামীকাল তাদের যশোর কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।