মাগুরার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে দু’দল গ্রাসবাসীর সংঘর্ষে আহত ৩০, ১০টি বাড়ি-ঘর ব্যাপক ভাংচুর-লুটপাট

আশরাফ হোসেন পল্টু,মাগুরা প্রতিনিধিঃ
শুক্রবার (আজ) সকালে মাগুরা সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে প্রতিপক্ষ দু’টি গ্রুপের মধ্যে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অন্ততঃ ৩০ জন আহত হয়েছে ।

এসময় উভয় পক্ষের ১০টি বাড়ি-ঘর ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে উভয় গ্রুপের ৬ জনকে আটক করেছে ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের ইউনুস মোল্যা ও রহমত মোল্ল্যার সমর্থকদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এরই সূত্রধরে বৃহস্পতিবার বিকেলে রহমত মোল্যার লোকজন পূর্বপরিকল্পিতভাবে আলোকদিয়া বাজারে গিয়ে ইউনুস মোল্যার সমর্থক বিল্লাল হোসেনের দোকানে হামলা করে এবং তার পা কেটে নেওয়ার হুমকি দেয় । এ ঘটনার প্রতিক্রিয়াস্বরুপ বিল্লালের মামাতো ভাই রানা আলোদিয়া ব্রিজের ওপর ওৎপেতে বসে থেকে রহমত মোল্যার সমর্থক দুঃখ নামে একজনকে বেধড়ক মারপিট করে।

এঘটনার রেশ ধরে এক অপরের প্রতিশোধ নিতে শুক্রবার ভোর সকালে রহমত ও ইউনুসের সমর্থকরা দেশীয় ধারাল অস্ত্র-সস্ত্র ঢাল,সড়কি,রামদা,ছ্যানদা ও লাঠি-সোটা নিয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের অন্ততঃ ৩০ জন মারাত্বক আহত হয় । এছাড়াও প্রতিপক্ষরা এসময় উভয় পক্ষের ১০টি বাড়ি-ঘর ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে থাকে।

সংবাদ পেয়ে মাগুরা থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

এ বিষয়ে মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মঞ্জুরুল আলম বলেন, দীর্ঘদিনের গ্রাম্য দলাদলির রেশ ধরে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্র্ষ বেঁধেছিল । সংবাদ পাওয়ামাত্রেই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি শান্ত করে । তবে পুলিশ পৌছানোর আগ মূহুর্তে সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়েছে । তবে এলাকার আইন-শৃঙ্খলা শান্ত রাখতে উভয়পক্ষের ৬জনকে আটক করা হয়েছে এবং এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।