রাজধানীর উত্তরায় এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ব্যবসায়ী আটক ।

রাজধানীর উত্তরায় এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সাভারের আশুলিয়ার এক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ওই ধর্ষণকারীর নাম সালাউদ্দিন শাওন (৫০)। সে আশুলিয়ার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।

পুলিশ জানায়,আশুলিয়া বাজারে রড সিমেন্টের ব্যবসা করার সুত্রে এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পরিচয় হয় সালাউদ্দিন শাওনের। পরে বিভিন্ন অজুহাতে ওই নারীর কাছ থেকে চার লক্ষ টাকা ধার নেন সালাউদ্দিন শাওন। পরে ওই নারী পাওনা টাকার জন্য চাপ দিলে সালাউদ্দিন শাওন গত কয়েকদিন আগে উত্তরার কালিয়ারটেক এলাকায় নিজ ভাড়া বাড়িতে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেন ওই নারীকে। এর পর ওই নারীকে মানুষিক যন্ত্রণা দিয়ে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ করে আসছিলো সালাউদ্দিন শাওন। এর পর ওই নারী অসুস্থ হলে গত ২৯ অক্টোবর রাজধানীর উত্তরা থানায় উপস্থিত হয়ে সালাউদ্দিন শাওনকে প্রধান আসামীকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে। এর পর পুলিশ ধর্ষণকারীকে ধরতে মাঠে নামে।

পরে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে গত বৃহস্পতিবার ১৯ নভেম্বর উত্তরার পশিচম থানার ১১ নাম্বার সেক্টরের ক্রোসফিস জীম থেকে রাতে ধর্ষণকারী সালাউদ্দিন শাওনকে আটক কওে তুরাগ থানা পুলিশ। পরে পুলিশ ধর্ষণকারীকে আদালতে হাজির করলে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এবিষয়ে তুরাগ থানার এস আই রুবেল হোসেন বলেন,ধর্ষণকারী সালাউদ্দিন শাওন আশুলিয়া এলাকায় নানা অপরাধ মুলক কর্মকান্ডে জড়িত তার নামে এর আগেও দুটি নারী নির্যাতন মামলা রয়েছে থানায়।

এলাকাবাসী এই ধর্ষণকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন ও তার সাথে যারা নানা অপকর্মে জড়িত রয়েছেন তাদেরও আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।