সাভারের বনগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলাদারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ(ভিডিও)

বিপ্লব,সাভার ঃ সাভারের বনগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলার সমাজের অসহায়দেরকে সরকারী খাস জমি দেওয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় তার বিরুদ্ধে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নীপার কাছে অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগীরা।

দুপুরে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নীপার পক্ষে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ গ্রহণ করেন উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা খালিদ হোসাইন। এবিষয়ে সাভার উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা খালিদ হোসাইন,বলেন বনগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ডেও ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলাদার তার ওয়ার্ডে সমাজের অসহায়দেরকে সরকারী পাঁচ শতাংশ করে জমি লিখে দেওয়ার কথা বলে প্রত্যেকদের কাছ থেকে দশ হাজার থেকে পনের হাজার করে টাকা হাতিয়ে নেন বলে আজ বিশজন ভুক্তভোগী তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

তিনি আরও বলেন এসময় ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলাদার টাকা নেওয়ার কথা শিকার করে ভুক্তভোগীদের টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলেন প্রশাসনিক কর্মকর্তা খালিদ হোসাইন।

তিনি এসময় আরও বলেন,সাভার উপজেলায় কোন সরকারী খাস জমি দেওয়ার নিয়ম নেই সে কিভাবে টাকা নিয়ে জমি দিতে চেয়েছে আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। তিনি এসময় আরও বলেন ওই ইউপি সদস্য বলেছেন জমি দেওয়ার কথা বলে তিনি যে টাকা নিয়েছেন ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে টাকা তিনি বনগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামকে দেননি টাকা তার কাছেই রয়েছে বলেও বলেন তিনি। ওই ইউপি সদস্য সাধাপুর ভুমিহীন সমবায় সমিতি লিমিটেডের প্যাডে জমি দেওয়ার কথা বলে সবার নাম ঠিকানাও নেন।

এবিষয়ে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও শামীম আরা নীপা বলেন,তদন্ত করে ওই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এসময় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরে ভুক্তভোগীরা বলেন,ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলাদার তাদেরকে সহজ সরল মনে করে সরকারী জমি লিখে দেওয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে আমরা তার কঠোর শাস্তি দাবি করছি। এসময় ভুক্তভোগীরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

জানাযায়,ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় গত বেশ কয়েকদিন আগে ওই ইউপি সদস্যের কাছে জানতে চাইলে ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলাদার ও তার ছেলে মাসুম হাওলাদার নিজেদের দুর্নীতির অপকর্ম ঢাকতে তখন সাংবাদিকদের বলেছিলেন জমি দেওয়ার কথা বলে টাকা আমরা নিয়েছি সেটা ঠিক কিন্ত সেই টাকার ভাগ আমরা ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামকে দিয়েছি বলে মানুষকে বিভ্রান্ত করেছিলো।

পরে ওই ইউপি সদস্য তার ওয়ার্ডে একটি মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করে নিজের দুর্নীতি ঢাকতে মানুষের চোখে নিজেকে নির্দোষ বলে প্রচার করেন মানববন্ধন থেকে। এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীরা বিতর্কিত এই ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান হাওলাদারের কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন।

এবিষয়ে বনগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম বলেন,সরকার উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে ইউপি সদস্য মানুষের সাথে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে আমরা তার কঠোর শাস্তি দাবি করছি।