সাভারের হেমায়েতপুরে স্ত্রীকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ ।

ঢাকার সাভারের হেমায়েতপুর জয়নাবাড়ী এলাকায় স্ত্রীকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। এঘটনার পর থেকে স্বামী শহিদুল ইসলাম (৪০) পলাতক রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতে সাভারের হেমায়েতপুরের জয়নাবাড়ি এলাকায় এ হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত ওই গৃহবধুর নাম রিনা বেগম (৪৫) সে জয়নাবাড়ি এলাকার মৃত সামসুল হকের মেয়ে।

নিহত ওই গৃহবধুর বোন রিপা অভিযোগ করে বলেন, তার বোন রিনা বেগম রাজধানীর শেরেবাংলা নগর এলাকার জাতীয় অর্থোপেডিক (পঙ্গু) হাসপাতালে আয়ার চাকুরী করে আসছিল। তার স্বামী শহিদুল ইসলাম (৪০)ওই হাসপাতালে নিরাপত্তার চাকুরী করত । সেখান থেকে তাদের পরিচয় এবং তিন বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ে হওয়ার আগে ওই নারীর কাছ থেকে বিভিন্ন ব্যবসার কথা বলে তার স্বামী শহিদুল ইসলাম ১৪ লক্ষ টাকা নেয় ।

সেই টাকা চাইলে ভোর রাতে তার বোনকে পিটিয়ে আহত করে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করে স্বামী শহিদুল ইসলাম। ঘটনার সময় শহিদুল আগুন নেভাতে নিজের বাড়িতে পানি থাকলেও দুরে মসজিদে পানি আনতে যায়। এতে করে আগুনে ঝলসে যায় রিনার দেহ। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষনা করেন। পরে হাসপাতাল থেকেই স্বামী শহিদুল ইসলাম পালিয়ে যায়।

এঘটনায় এলাকাবাসী ঘাতকের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছে নিহত ওই নারীর এমন হত্যা কান্ডে ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

শহিদুল ইসলাম নিহত ওই নারীর দ্বিতীয় স্বামী ছিল। এছাড়া শহিদুল ইসলামের ঢাকায় অপর স্ত্রী রয়েছে। সে দুই স্ত্রীর কাছেই যাওয়া-আসা করতো। ঘাতকের বাড়ি বরিশাল জেলায় বলে জানা গেছে ।  শহিদুল ইসলাম এর পিতা মোঃ হানিফ মিয়া , রাজধানীর শেরেবাংলা নগর এলাকায় জাতীয় অর্থোপেডিক (পঙ্গু) হাসপাতালে চাকরি করেন বলে জানা যায় ।