সাভারে তিতাস গ্যাসের নামধারী ভায়া ঠিকাদার হুমায়ুন কবির(রশিদ) অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা

স্টাফ রিপোর্টারঃ সাভারে তিতাস গ্যাসের নামধারী ভায়া ঠিকাদার হুমায়ুন কবির(রশিদ) অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা । অভিনব কায়দায় তিতাস গ্যাসের বৈধ সংযোগ দেয়ার কথা বলে বিভিন্ন বাসা বাড়ির মালিকদের কাছ থেকে, প্রায় ২০ লক্ষ টাকারও বেশী হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি।

সাভার উপজেলার তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের জয়নাবাড়ী ও স্কুল পাড়া এলাকায় তিতাস গ্যাসের এসব অবৈধ সংযোগ দেওয়ার কথা বলে এসব টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি । এ সময় প্রতিটি সংযোগ দিয়ে ৭০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১লক্ষ ৫০ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিয়েছেন নামধারী এই ঠিকাদার রশিদ , তাহার প্রতারণার ফাঁদে পড়ে বিপাকে পড়েছেন ভুক্তভোগীরা।

ভুক্তভোগীরা বলেন, তিতাস গ্যাসের বৈধ সংযোগ দেয়ার কথা বলে রশিদ ঠিকাদারের সহযোগী খোকনের মাধ্যমে বাসা বাড়ির মালিকদের কাছ থেকে প্রায় ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকা নিয়ে সংযোগ দেন রশিদ ।

এ সময় গ্যাসের বিল পরিশোধের জন্য ভুক্তভোগীদেরকে গ্যাস বিলের বই ও দিয়েছিলেন তিনি । পরে তারা গ্যাসের বিল পরিশোধের জন্য ব্যাংকে টাকা জমা দিতে গেলে, জানতে পারেন প্রতারণার শিকার হয়েছেন তারা। এর পর ভুক্তভোগীরা আরও বলেন,বৈধতা যাচাই এর জন্য আমরা সাভার তিতাস গ্যাস অফিসে গিয়ে বিল পরিশোধ বইয়ের সদস্য নাম্বার দিলে, দেখা যায় অন্য এলাকার আরেক জন গ্রাহকের সদস্য নাম্বার দিয়ে এই ভুয়া বিল বই বানিয়েছেন ঠিকাদার রশিদ।

এসব অবৈধ গ্যাস সংযোগ বাণিজ্যের ব্যাপারে ঠিকাদার রশিদ এর সহযোগী খোকনের কাছে জানতে চাইলে, ঘটনার সত্যতা শিকার করে তিনি বলেন, সংযোগ নেয়ার ব্যাপারে আমি নিজেও তাকে এক লক্ষ টাকা দিয়েছি। এছাড়া ঠিকাদার রশিদ বৈধ সংযোগ দেয়ার কথা বলে সে নিজেই বাসা বাড়ির মালিকদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছেন।

এ বিষয়ে নামধারী ঠিকাদার আব্দুর রশিদের সাথে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আমার দেশের বাড়িতে অসুস্থ আছি, আমার ছেলেও একজন সাংবাদিক , তাহার নাম উসো মোল­া সে এ ব্যাপারে আপনাদের সাথে কথা বলবে ।

এ ঘটনায় সাভার তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিষ্ট্রিবিউশন কো¤পানী লিমিটেডের প্রকৌশলী সায়েম বলেন, তদন্তের মাধ্যমে ঠিকাদার রশিদ এর অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।