সিসিইউতে যেমন আছেন খালেদা জিয়া

বিশেষ প্রতিনিধি : ১৪ দিন ধরে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

এবারের ঈদও কেটেছে হাসপাতালে। করোনা আক্রান্ত হওয়ার ২৭ দিন পর শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে গত ৩ মে এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকে তিনি সেখানেই ভর্তি রয়েছেন।

হাসপাতালের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন বেগম খালেদা জিয়া এখন কেমন আছেন সে বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের মতোই রয়েছে। তিনি এখনও অক্সিজেন নিচ্ছেন। ডায়াবেটিসও রয়েছে আগের মতোই। কিডনিতেও কিছুটা সমস্যা রয়েছে। হাসপাতালের সিসিইউতে রেখেই তাকে করোনা-পরবর্তী জটিলতার চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন সিটি নিউজকে সোমবার (১৭ মে) বলেন, এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তির পর ১৪ দিন ধরে সিসিইউতে রয়েছেন বেগম জিয়া। করোনাভাইরাস সংক্রমণমুক্ত হলেও তার পুরনো রোগ আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিসের পাশাপাশি হৃদযন্ত্র ও কিডনি জটিলতায় ভুগছেন তিনি।

গতকাল ১৬ মের পর আজও ডা. শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনা করেছেন।

ডা. জাহিদ বলেন, ‘বেগম জিয়ার পোস্ট-কোভিড নানা রোগের বিষয়ে চিকিৎসকরা নিবিড় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ব্যবস্থা নিচ্ছেন। এর বেশি কোনো আপডেট নেই। এটা একটা লংটার্ম চিকিৎসা। চিকিৎসক হিসেবে এখনই কিছু প্রেডিকশন করে বলা যাবে না।’

গত ১১ এপ্রিল গুলশানের ফিরোজায় বেগম খালেদা জিয়াসহ ৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরপর থেকে গুলশানের বাসভবনেই তার চিকিৎসা চলছিল। গত ২৭ এপ্রিল তাকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে গত ৩ মে তাকে নেয়া হয় সিসিইউতে। ইতোমধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসন করোনামুক্ত হয়েছেন। তবে শঙ্কামুক্ত নন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছিল; কিন্তু সরকার তা নাকচ করে দিয়েছে।