সুন্দরগঞ্জে ৪২টি ইয়াবা ট্যাবলেটসহ পুলিশ কনস্টেবল গ্রেপ্তার ।

সুন্দরগঞ্জে ৪২টি ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ৩৪ বছর বয়সী ফারুকুল ইসলাম নামে এক পুলিশ কনষ্টেবলকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

গতকাল দিন গত রাতে উপজেলাটির ডোমেরহাট বাজার থেকে পুলিশ কনষ্টেবল ফারুকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত ফারুকুল ইসলাম উপজেলাটির রামজীবন ইউনিয়নের বাজারপাড়া গ্রামের আলহাজ্ব খায়রুজ্জামানের পুত্র ও তার চাচা আলহাজ্ব কামরুজ্জামনের পালিত পুত্র। ফারুকুল ইসলাম দিনাজপুর কোতয়ালী থানাধীন বালুবাড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে কনষ্টেবল পদে চাকরি করছে। যার কনষ্টেবল নম্বর-৪৩১। স্থানীয়রা বলছেন, ফারুকুল ইসলাম পুলিশে চাকরি করলেও ঘন ঘন বাড়িতে এসে অবাধে মাদক কারবারে জড়িত থাকে। এমনকি, পরিবার-পরিজনের সঙ্গে মাতলামিও করে থাকে।

সুন্দরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ ও উপ-পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা পৃথক পৃথকভাবে বলেন, পুলিশ কনষ্টেবল ফারুকুল ইসলামসহ ২ জনের বিরুদ্ধে থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করে গ্রেফতারকৃত আসামী ফারুকুল ইসলামকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। অজ্ঞাতনামা অপর আসামীকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

দিনাজপুর কোতয়ালি থানাধীন বালুবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ সোহেল রানা বলেন, পুলিশ ফাঁড়ির ৪৩১ নম্বর বিশিষ্ট কনষ্টেবল কোনরূপ ছুটি ছাড়াই এই পুলিশ ষ্টেশনের বাইরে আছে। তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটিও বন্ধ রয়েছে। কনষ্টেবল ফারুকুল ইসলাম এরআগে পুলিশ লাইনে থাকা কালেও একইভাবে কর্মরত স্থান ছেড়ে বাড়িতে গিয়ে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে বলে বিষয়টি জানতে পেয়েছি।
দিনাজপুর কোতয়ালী থানা অফিসার ইনচার্জ- মোঃ রেদওয়ানুর রহীম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এঘটনায় এলাকাবাসী বলছেন, ১৪ই জুলাই ভবানীপুর গ্রামের আশেক আলী মাষ্টারের পুত্র আশরাফুজ্জামান ওরফে সুমন মিঞা একইভাবে বাড়িতে এসে মাদক কাবারিতে গ্রেপ্তার হলেও বহাল তবিয়তে চাকরি করছে। সুমন মিঞা সে সময় লালমনিরহাটের আদিতমারি থানায় পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরিরত ছিলেন।