ধামরাইয়ে মাক্রোবাস ড্রামট্রাক সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ৭

ঢাকার ধামরাইয়ে মাক্রোবাস ড্রামট্রাক সংঘর্ষে পলিকেবলের কর্মরত অফিসার মোঃ মোশারফ হোসেন (৪৭) নামে এক কর্মী মাথায় আঘাত লেগে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এই সময় আহত হয় মাক্রোবাসে থানা আর সাতজন।

আজ শনিবার (০৯ ফ্রেরুয়ারী) সকাল ১০টা ৩০ মিনিট সময় মুন্সিগঞ্জে যাওয়ার পথে ধামরাই ইসলামপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহত মোশারফরের বাড়ী পটুওয়াখালী জেলার বাউফল থানার বড়িপাশা গ্রামের মোঃ মোনায়েম গাজীর ছেলে। আহতরা হলেন, ফরিদপুর জেলার ফরিদপুর থানার টেপাখোলা গ্রামের মৃত রাশেদ আলী ছেলে মোঃ সেলিম হোসেন (৩৬), পটুওয়াখালী জেলার কতোয়ালী থানার পশ্চিম খাবাসপুর গ্রামের বাড়ীহাওলাদারের ছেলে মোঃ ইলিয়াচ হাওলাদার( ৫০), একই থানার বাইতুল গ্রামের মোঃ ইউছুবের ছেলে মোঃ জাহিদ হোসেন(৪৮) মোঃ রুবেল, মোঃ রাজ্জাক, ফজলুল হোসেনসহ আরও একজন, এই রিপোট লেখা পর্যন্ত তার নাম পাওয়া যায়নি।

এই ব্যাপারে প্রত্যেকদশীর্রা জানান, আজ সকাল ১০টা ৩০ মিনিট সময় ঢাকা আরিচা মহাসড়কের পশ্চিম দিক থেকে একটি মাক্রোবাস ঢাকার দিকে আসতে থাকলে ধামরাই ইসলাম এলাকায় এসে পৌছালে একটি ড্রামট্রাকের সাথে সংঘর্ষ হলে মাক্রোবাসটি নিয়তন্ত্র হারিয়ে রাস্তার পাশে বিদ্যুতের খুটির সাথে ধাক্কা লেগে দুমোছরে পড়ে গেলে ঘটনাস্থলে মোশারফ নামে লোকটি মারাযায়। আহতদের উদ্ধার করে ধামরাই সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এই ব্যাপারে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এ এস আই) মোঃ আজাদ জানান, আজ সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে সময় ফরিদপুর থেকে আটজনের একটি পলিকেবলের টিম মুন্সিগঞ্জ আফিসে যাওয়া পথে ধামরাই ইসলামপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌছালে একটি ড্রামট্রাকের সাথে সংঘর্ষ হলে মাক্রোবাসটি নিয়তন্ত্র হারিয়ে বাম পাশের বিদ্যুতের খুটির সাথে ধাক্কা লেগে দুমোছরে পড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলে মোঃ মোশারফ হোসেন নামে এক কর্মী নিহত হয়। আহত হয় আর ও সাতজন।

পরে এলাকাবাসির সহযোগিতাই আহতদের উদ্ধার করে ধামরাই সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এই ঘটনায় ঘাতক ড্রাম ট্রাক চালক ট্রাক নিয়ে পালিয়ে গেছে।