রাজশাহীতে দেবীর বোধনের মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু

সৌমেন মন্ডল, রাজশাহী ব্যুরোঃ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। আর রাজশাহীতে দেবীর বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে এ ধর্মীয় উৎসব। বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) সকাল ১০ টার দিকে মহাষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে পূজার মূল আনুষ্ঠানিকতা।

ঢাকের বোল, কাঁসর ঘণ্টা আর শাঁখের ধ্বনিতে মুখর হয়ে উঠেছে পূজামÐপ। তবে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে পূজামÐপের আয়োজন এবার অনেকটাই সীমাবদ্ধ থাকছে। এবার হচ্ছে না মেলা, শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

পরিস্থিতি বিবেচনায় সন্ধ্যা আরতির পর মÐপে দর্শনার্থী প্রবেশ বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পূজা উদযাপন পরিষদ। পূজায় মায়ের কাছে প্রার্থনা থাকবে তিনি যেন পুরো পৃথিবীর মানুষকে সকল অমঙ্গল থেকে রক্ষা করেন।

রাজশাহী হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ বলেন, রাজশাহী জেলা ও মহানগর মিলে ৪৭৮টি মÐপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে জেলায় ৪০৮টি ও নগরে ৭০টি মÐপে এ পূজা হবে।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে পূজামÐপের আয়োজন এবার অনেকটাই সীমাবদ্ধ থাকছে। এবার উৎসব নয়, আয়োজন হয়েছে পূজার।

রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখায়ের আলম বলেন, এবারের পূজায় স্বাস্থ্যবিধির ওপরে গুরুত্ব দেওয়ার পাশাপাশি নিরাপত্তার সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এবারের দুর্গাপূজায় ২৬টি নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, পঞ্জিকা অনুযায়ী এবার মহালয়া হয় ১৭ সেপ্টেম্বর। কিন্তু পঞ্জিকার হিসাবে এবার আশ্বিন মাস ‘মল মাস’, মানে অশুভ মাস। সে কারণে এবার আশ্বিনে দেবীর পূজা হয়নি। পূজা হচ্ছে কার্তিক মাসে। সেই হিসাবে এবার দেবী দুর্গা ‘মর্ত্যে এসেছে’ মহালয়ার ৩৫ দিন পরে। তাই ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠী তিথিতে হয়েছে বোধন। পরদিন সপ্তমী পূজার মাধ্যমে শুরু হবে দুর্গোৎসবের মূল আচার অনুষ্ঠান। আগামী ২৬ অক্টোবর মহাদশমীতে বিসর্জনে শেষ হবে দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠানিকতা।