ধামরাইয়ে ইউপি সদস্যের বাড়িতে গার্মেন্টস কর্মীকে নির্যাতন।

মোঃ সম্রাট আলাউদ্দিন (ধামরাই প্রতিনিধি) ঢাকার ধামরাইয়ে এক ইউপি সদস্যের বাড়িতে এক গার্মেন্টস কর্মীকে নির্যাতনের সত্যতা পাওয়া গেছে। নির্যাতনের স্বীকার ওই গার্মেন্টস কর্মীর নাম বাবুল হোসেন। নির্যাতিত ওই গার্মেন্টস কর্মী মোঃ বাবুল হোসেন (৩৫) উপজেলার বড় চন্দ্রাইল এলাকার মৃত খোয়াজ উদ্দিনের ছেলে।

সে স্থানীয় ‘স্নোটেক্স আওটার ওয়ারথ গার্মেন্টস কারখানায় চাকরি করে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রোববার রাতে কুল্লা ইউনিয়নের খাতরা গ্রামে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার বড় চন্দ্রাইল গ্রামের মৃত খোয়াজ উদ্দিনের ছেলে বাবুল হোসেন (৩৫) স্থানীয় ‘স্নোটেক্স আওটার ওয়ারথ গার্মেন্ট কারখানায় চাকরি করেন। সে রোববার ছুটির পর বাড়ি ফিরছিলেন। তাকে রাত নয়টার দিকে কুল্লা ইউপি সদস্য বোরহান উদ্দিনের নেতৃত্বে কয়েকজন মিলে একটি প্রাইভেটকারে তোলে নিয়ে যান বোরহান উদ্দিনের নিজ বাড়িতে। সেখানে তাকে বেধরক মারপিট করা হয়।

আরো জানা গেছে, বেধরক মারপিটের পর ওই গার্মেন্টস কর্মীর কাছ থেকে জোড় পূর্বক এক সেট (তিন পাতার) ননজুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষ্যর করিয়ে নেন ওই পাষন্ড ইউপি সদস্য। এছাড়াও গার্মেন্টস কর্মীর কাছ থেকে জমি লিখে নেয়ারও পায়তারা চালায় ওই ইউপি সদস্য।

পরে খবর পেয়ে ধামরাই থানা পুলিশ বাবুলকে উদ্ধার করে। এবং গার্মেন্টস কর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে বাচ্চু মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে আটক করে । এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

পুলিশি তৎপরতায় উদ্ধার হওয়া ওই গার্মেন্ট কর্মীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দিয়েছে পুলিশ।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য বোরহান উদ্দিন বলেন, প্রায় চার মাস আগে ১৪ শতাংশ জমি বিক্রি করার শর্তে তার কাছ থেকে আড়াই লাখ টাকা বায়না নেন বাবুল। কিন্তু জমিও লিখে দিচ্ছে না আবার টাকাও ফেরত দিচ্ছে না। ফলে তাকে মারপিট করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে আপোষ মিমাংসার চেষ্টা চলছে।